টিপস এন্ড ট্রিকস

ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩- কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম

প্রিয় পাঠক আপনি কি জানেন, কিভাবে কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজ ক্রয় করতে হয়? এবং ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩ কি? আশা করি আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনার সমস্ত প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন। এছাড়াও এই পোস্টের মাধ্যমে ওয়ালটন ফ্রিজ ৮, ১৩, ১৪, ১৬, ১৮ সেফটি দাম ও সংক্ষিপ্ত বিবরন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম

ওয়ালটন ফ্রিজ দেশীয় পন্য হওয়ায় কাস্টমারদের জন্য বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে। একজন কাস্টমার ইন্সট্রলমেন্ট, ক্যাশ টাকা বা তিন মাসের মধ্যে টাকা দিয়ে ফ্রিজ কয় করতে পারবে। আপনি যদি তিন মাসের মধ্যে টাকা দিয়ে ফ্রিজ ক্রয় করেন তাহলে নগদ মূল্যে ক্রয় করার সুবিধা পাবেন।

এছাড়াও মাসিক কিস্তির মাধ্যমেও ফ্রিজ কিনতে পারবেন। মাসিক কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার জন্য ৩, ৬, ১২ এবং ২৪ মাসের কিস্তিতে ফ্রিজ ক্রয় করতে পারবেন।

 আপনি কোন প্যাকেজের কিস্তিতে ফ্রিজ ক্রয় করবেন এর উপর নির্ভর করবে কিস্তিতে ওয়ালট ফ্রিজের দাম। সাধারণত মাসিক কিস্তিতে ফ্রিজ কিনলে মূল টাকার ৮ থেকে ১২% টাকা অতিরিক্ত পরিশোধ করতে হয়। তাই কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার জন্য সর্বপ্রথম ফ্রিজের প্রকৃত মূল্যের দাম সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। চলুন তাহলে ওয়ালটন ফ্রিজ ৮, ১৩, ১৪, ১৬, ১৮ সেফটি দাম ও সংক্ষিপ্ত বিবরন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া নেই।

ওয়ালটন ফ্রিজ ৮ সেফটি দাম

আপনাদের যাদের পরিবারে সদস্য সংখ্যা কম তাদের জন্য ওয়ালট ফ্রিজ ৮ সেফটি পারফেক্ট। স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য এই ফ্রিজটি খুবই উপকারি হবে। এই ফ্রিজের প্রকৃত মূল্য হচ্ছে ১৬৫৯০ টাকা। তবে কিস্তিতে  ক্রয় করলে এর সাথে আরও ৮ থেকে ১২% টাকা অতিরিক্ত পরিশোধ করতে হবে। সেক্ষেত্রে, কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম হবে ১৭৯২০ টাকা থেকে ১৮৫৮০ টাকার মত।

ওয়ালটন ফ্রিজ ৮ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ৮ সেফটি দাম

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৩ সেফটি দাম

আগে ওয়ালটন কোম্পানির ১৩.৫ সেফটি ফ্রিজ ছিল। সম্প্রতি ১৩ সেফটি মডেলের ফ্রিজ বাজারে চলে আসছে। যাদের বাজেট ২৪ থেকে ২৫ হাজার টাকার মধ্যে তাদের জন্য এই ফ্রিজটি পারফেক্ট হবে। এর সাথে প্রিবিল্ড স্টাবিলাইজার রয়েছে। তাই আলাদা কোন স্টাবিলাইজারের জামেলা পোহাতে হবে না।

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৩ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ১৩ সেফটি দাম

সুপ্রিয় পাঠক, যাদের একত্রে ২৪ থেকে ২৫ হাজার টাকা দিয়ে ১৩ সেফটি ফ্রিজ কেনার সামর্থ্য নেই। তারা কিস্তির মাধ্যমেও ফ্রিজটি ক্রয় করতে পারবেন। আপনি যদি ১২ কিস্তিতে ফ্রিজটি কিনতে চান তাহলে এর মূল্য হবে ২৭০০ টাকা ২৮০০০ টাকার মত।

ওয়ালটন  ফ্রিজ ১৪ সেফটি দাম

আপনারা যারা অল্প বাজেটের মধ্যে অনেক বড় সাইজের ফ্রিজ খোঁজেতেছেন। তাদের জন্য ওয়ালটনের ১৪ সেফটি ফ্রিজটি ভাল হবে। আপনি আপনার চাহিদা অনুযায়ী নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র রেখে দিতে পারবেন। এই মডেলের ফ্রিজগুলি ৩ থেকে ৪ টা রঙের হয়ে থাকে। তাই আপনি আপনার পছন্দের রং অনুযায়ী কিনতে পারবেন। কিস্তি ছাড়া এই ফ্রিজটি কিনতে ৩৬০০০ টাকার মত লাগবে। তবে কিস্তিতে ওয়াটন ফ্রিজের দাম হবে ৩৮৮০ টাকা থেকে ৪৩২০ টাকা লাগবে।

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৪ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ১৪ সেফটি দাম

 ওয়ালটন ফ্রিজ ১৬ সেফটি দাম

ওয়ালটনের ১৬ সেফটি ফ্রিজটিও অনেক কোয়ালটি সম্পন্ন। একাধিক কালার থাকায় আপনি আপনার পছন্দের কালারট বেছে নিতে পারেন। আপনারদের অনেকে জানতে চেয়েছেন ওয়ালট ফ্রিজ ১৬ সেফটি দাম কত? ওয়ালটন ফ্রিজ ১৬ সেফটি দাম ৪৪৩২০ টাকার মত। তবে কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম হবে ৪৭৮৬৫ থেকে ৪৯ ৬৪০ টাকার মত। 

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৬ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ১৬ সেফটি দাম

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৮ সেফটি দাম

ওয়ালটন কোম্পানির দামি ফ্রিজগুলির মধ্যে ১৮ সেফটি ফ্রিজটি অন্যতম। এই ফ্রিজের মডেলগুলিতে রয়েছে নানা ধরনের ফিচার। তাই আপনি যদি আপনার পরিবাবের জন্য এই ফ্রিজটি নেন তাহলে অনেক ধরনের সুবিদা পাবেন। আপনার পছন্দ অনুযায়ী কালার সিলেক্ট করতে পারবেন। এই ফ্রিজের দাম যেমন একটু বেশি তেমনি ফিচারও বেশি পাবেন।

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৮ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ১৮ সেফটি দাম

সাধরনত ওয়ালটন ফ্রিজ ১৮ সেফটি দাম ৪৬৪৯০ টাকার মত হয়ে থাকে। কিন্তু কিস্তিতে ক্রয় করলে আরও বেশি টাকা লাগবে। এক্ষেতে কিস্তিতে ওয়ালট ফ্রিজের দাম হবে ৫০২১০ টাকা থেকে ৫২০৭০ টাকার মত।

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৯ সেফটি দাম

ওয়ালটনের ১৯ সেফটি ফ্রিজটি অনেক বড় সাইজের ফ্রিজ। সাধারনত যে সব ফ্যামেলিতে এক সাথে এক মাস বা এর থেকে বেশি সময়ের বাজার করে তাদের জন্য খুবই উপযোগী। এই ফ্রিজের ডিপ সাইজ তুলনামূলক অনেক বড় থাকে। তাই আপনি আপনার প্রয়োজনীয় সকল মাছ, মাংস রেখে দিতে পারবেন।

ওয়ালটন ফ্রিজ ১৯ সেফটি দাম
ওয়ালটন ফ্রিজ ১৯ সেফটি দাম

সাধারণত এই ধরনের ওয়ালটন ফ্রিজের দাম একটু বেশি হয়ে থাকে। তবে অনেক সময় বিভিন্ন ছাড় দিয়ে থাকে তখন ক্রয় করলে দাম অনেকটাই কম লাগে। প্রিয় পাঠক আপনি যদি ওয়ালটন ফ্রিজ ১৯ সেফটি কিনতে চান তাহলে ৪৮৫০০ টাকার মত লাগবে। যেহেতু কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম মূল টাকার সাথে ৮ থেকে ১২% টাকা অতিরিক্ত দিতে হয়। এক্ষেত্রে এই ফ্রিজটির দাম ৫২৩৮০ টাকা থেকে ৫৪৩২০ টাকার মত লাগবে।

ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩

ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার জন্য কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে। আপনি যদি কিস্তিতে ফ্রিজ ক্রয় করতে চান তাহলে এই নিয়ম কানুনগুললি অব্যশই মেনে ফ্রিজ ক্রয় করতে হবে। আপনি ৩, ৬, ১২ এবং ২৪ মাসের কিস্তিতে ফ্রিজ কিনতে পারবনে। ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩ হচ্ছেঃ আপনার পছন্দের ফ্রিজের এমআরপি মূল্যের ২০% টাকা জমা দিতে হবে। এছাড়াও কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার জন্য সকল প্রকার প্রসেসিং বাবদ ২০০ টাকা ফি দিতে হবে।

ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩
ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩

যদি ৩ মাসের কিস্তিতে ফ্রিজ কিনেন তাহলে আপনাকে কোনো অতিরিক্ত টাকা দিতে হবে না। আর যদি ৬, ১২ এবং ২৪ মাসের কিস্তিতে ফ্রিজ কিনেন তাহলে ৮ থেকে ১২ % টাকা মূল টাকার অতিরিক্ত পরিশোধ করতে হবে। এছাড়াও ক্রেতারা ডাউন পেমেন্টের মাধ্যমে পন্য ক্রয় করতে পারবে। সাধারনত ডাউন পেমেন্টগুলো ২০% থেকে শুরু হয়ে থাকে।

কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজ কেনার শর্ত

কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার জন্য কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। একটি কোম্পানি এক এক ধরনের শর্ত দিয়ে থাকেন। তাই কিস্ততে ওয়ালট ফ্রিজ কেনার জন্য কিছু শর্ত নির্ধারণ করে দিয়েছেন। কিস্তিতে ওয়াটন ফ্রিজ কেনার শর্তগুলি হলঃ

১। প্রতি মাসের কিস্তি প্রতি মাসের ১ থেকে ১০ তারিখের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে।

২। যদি ক্রেতা কোন কারনে কিস্তি দিতে ব্যর্থ হয় তাহলে জামিনদারের তা পরিশোধ করতে হবে।

৩। পন্য ক্রয় করার পরের মাস থেকে রেগুলার কিস্তি প্রদান করতে হবে।

৪। কিস্তি চলাকালীন অবস্থায় নতুন কোন পন্য কিস্তিতে ক্রয় করতে পারবে না।

কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার জন্য কি কি ডকুমেন্টস লাগবে 

ওয়ালটনের যে কোন পন্যই নগদ টাকার পাশাপাশি কিস্তিতে কেনা যায়। তবে কিস্তিতে ওয়ালটন পন্য কেনার জন্য কিছু ফরমালিটিস মেনে চলতে হয়। যেমনঃ যে ব্যক্তি পন্য ক্রয় করবে তার দুই কপি ছবি, ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি এবং তার পরিচিত দুইজন জামিদার। জামিনদারের ভোটার আইডি কার্ডের এক কপি ছবি।

জামিনদারকে একটি ফর্ম ফিল আপ করতে হবে। এরপর ঐ ব্যক্তি তার পছন্দের পোডাক্ট কিস্তিতে কিনতে পারবেন। এছাড়া যে কোনো ধরনের তথ্য জানতে সরাসরি Walton Company’s যে কোন শোরুমে যোগাযোগ করতে পারেন।

পরিশেষে,

অন্যান্য কোম্পানির ফ্রিজগুলির তুলনায় ওয়ালট কোম্পানির ফ্রিজের দাম কম ও কালার কোয়ালিটি অনেক ভালো। তাই ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে থাকে। বিভিন্ন সেফটির ফ্রিজ থাকায় ক্রেতারা তাদের পছন্দ অনুযায়ী ক্রয় করতে পারে। আপনি নগদ মূল্য বা মাসিক কিস্তি ভিত্তিক টাকা দিয়ে ফ্রিজ ক্রয় করতে পারবেন। তবে ওয়ালটন ফ্রিজ কিস্তিতে কেনার নিয়ম ২০২৩ অনুসরণ করতে হবে।

কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম অনেকটাই কম। তবে কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার পূর্বে ফ্রিজের প্রকৃত মূল্য সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। আপনি চাইলে এক বা একাধিক শোরুম থেকে ফ্রিজের দাম যাচাই বাচাই করে নিতে পারবেন। এছাড়াও ফ্রিজের ওয়ারেন্টি এবং রিপ্লেসমেন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন। ফেসবুকের চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে আজেবাজে কোম্পানির ফ্রিজ কেনা থেকে বিরত থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button